Its all about blogging !

Welcome To Bloggy Time--Search The Blog--Explore--Share

12 October 2017

নেটওয়ার্ক এ Protocol

ÆPROTOCOLÅ

একটি নেটওয়ার্ক এ শুধুমাত্র মিডিয়া থাকলেই একটি কম্পিউটার আর একটি কম্পিউটার এর সাথে যোগাযোগ গড়তে পারে না। একটি মানুষ আর একটি মানুষের সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে প্রথমে তাদের একই ভাষা জানতে হবে। দুজনই যদি ভিন্ন ভাষাতে কথা বলে তবে কেউ কাউকে কিছু বোঝাতে পারবে না। ভাষা যেমন এক ধরনের নিয়ম কানুন ঠিক তেমনই হল Protocol Protocol এ বলা থাকে একটি কম্পিউটার অন্যটির সাথে কিভাবে যোগাযোগ করবে। ভাষার মতই বিভিন্ন protocol আছে এবং একটি অন্যটির থেকে ভিন্ন।
দুটি কম্পিউটার যখন একটি আরেকটির নিকট ডাটা পাঠায় তখন সেই দুটি কম্পিউটার এর মাঝে সমঝোতা হওয়া দরকার যে তারা কোন নিয়মে Signal পাঠাবে। একটি কম্পিউটার যে নিয়মে signal পাঠাছে তা বোঝার ক্ষমতা যদি অন্য কম্পিউটার এর না থাকে তবে যোগাযোগ সম্ভব হবে না। উভয় কম্পিউটার কে একই Protocol ব্যবহার করতে হবে। কয়েকটি Protocol যখন একসাথে কাজ করে তখন সেটাকে Protocol suite বলে। বর্তমানে তিনটি জনপ্রিয় Protocol হল-
(i)                   IPX/SPX : এর পুরো অর্থ Internet Packet Exchange/Sequence Packet Exchangeএই Protocol Suite কেবল Novell Network এর সাথে ব্যবহার হয়।
(ii)                  Apple Talk : Apple computers Apple Macintosh computer এর জন্য এই Protocol suite তৈরি করে।
(iii)                TCP/IP : এটি হল ইন্টারনেট এ ব্যবহারের জন্য Protocol Suiteবিভিন্ন ধরনের প্লাটফর্মে এই Protocol ব্যবহার করা যায় বলে ইন্টারনেট এ TCP/IP ব্যবহার করা হয়। বড় ধরনের নেটওয়ার্ক এর জন্য এইটি বেশ উপযোগী
 Protocol যে সব বিষয়ে সমাধান দেয় –
·         Network Host গুলি যুক্ত করার জন্য কোন ধরনের মিডিয়া ব্যবহার হবে?
·         Transmission media তে Data কীভাবে পরিবাহিত হবে?
·         কখন Data Transmit করতে হবে তা network এর host গুলি কীভাবে জানবে?
·         Transmission এ প্রাপ্ত Data কে কিভাবে যাচাই করা হবে?
এই প্রশ্নের উত্তর নিয়ে যে নিয়মকানুন তৈরি হয় তা হল Protocol
এখানে আমরা কিছু Protocol Suite Suite সম্পর্কে জানবো।
IP (Internet Protocol) : TCP/IP Protocol Suite এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ Protocol এইটি। এইটি নির্ধারণ করে দেয় নেটওয়ার্ক এ বিভিন্ন host এর logical address কী হবে। TCP/IP Network এ প্রতিটি host কে একটি unique নম্বর দেওয়া হয়। যাকে IP address বলা হয়। প্রতিটি Host কে 32 Bit এর নম্বর দিয়ে চিহ্নিত করা হয় যার একটি অংশ থাকে নেটওয়ার্ক এর নম্বর ও আর একটি অংশ Host এর অংশ হিসাবে কাজ করে। একই নেটওয়ার্ক এর ভিতর দুটি Host এর IP address একই হতে পারে না।
TCP (Transmission Control Protocol) : TCP ব্যবহার হয় কানেকশন-  অরিয়েন্টেড নির্ভরযোগ্য ট্রান্সমিশন সার্ভিস এর জন্য। প্রতি Host একসাথে কী পরিমান Data গ্রহন করতে পারবে, DATA Transfer এর জন্য Data packet কোন ধরনের Sequence ব্যবহার করা হবে তার জন্য এটি ব্যবহার হয়।

ARP (Address Resolution Protocol) : Network এ প্রতিটি Host কে চিহ্নিত করা হয় IP address দিয়ে। IP address একটি Logical addressএটিকে আমরা পরিবর্তন করতে পারি। প্রতিটি নেটওয়ার্ক adapter(LAN card) এর একটি করে hardware address বা MAC address থাকে যা আমরা পরিবর্তন করতে পারি না একটি কম্পিউটার যখন অন্য কম্পিউটার এর সাথে IP address দিয়ে যোগাযোগ করতে চাইবে তখন সে যোগাযোগ করতে পারবে যদি তার MAC address বার করতে পারে। প্রতিটি IP address এর বিপরীতে সেই ডিভাইস এর MAC address কী তার একটি সারনি তৈরি করে এই protocol

RARP (Reverse Address Resolution Protocol) : এইটি ARP এর উল্টো কাজ করে। ARP তে আমরা IP address জানলে সেই ডিভাইস এর MAC address জানতে পারি। RARP তে MAC জানা থাকলে IP জানা যায়।

ICMP (Internet Control Message Protocol) : এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ protocol Network এর বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের জন্য এই protocol ব্যবহার হয়। IP DATAGRAM কোন কারনে বাধাগ্রস্ত হলে তখন ICMP Error মেসেজ পাঠায় প্রেরণকারী ডিভাইস এর নিকট। কয়েকটি Error ও Control মেসেজ হল : Destination host unreachable, Echo, Echo reply, Request time out Etc. এই ধরনের Error মেসেজ দেখে বোঝা যায় কোন ধরনের সমস্যা নেটওয়ার্ক এ ঘটেছে। নেটওয়ার্ক troubleshooting এর জন্য Ping utility এই ICMP ব্যবহার করে। Ping এর মাধ্যমে ICMP packet পাঠানো হয় Host এর নিকট। Host যদি নেটওয়ার্ক এ সঠিক ভাবে যুক্ত থাকে তবে তার কাছ থেকে উত্তর পাওয়া যাবে। উত্তর না পাওয়া গেলে বুঝতে হবে নেটওয়ার্ক নেই বা বিকল।

FTP (File Transfer Protocol) : একটি কম্পিউটার থেকে আর একটি কম্পিউটার এ file copy করার জন্য এটি ব্যবহার হয়। এটি শুধু একটি Protocol নয়, এটি একটি serviceএর জন্য বিভিন্ন server application ব্যবহার করা হয়। FTP ব্যবহার করে অন্য কম্পিউটার থেকে নিজ কম্পিউটার এ কিছু copy করাকে download এবং নিজ কম্পিউটার থেকে অন্য কম্পিউটার এ কিছু দেওয়া কে upload বলে।
     Internet থেকে আমরা কিছু Download বা Upload করি তখন সেটি এর মাধ্যমে হয়

 SMTP (Simple Mail Transfer Protocol) : Email (Electronic Mail) পাঠানোর জন্য SMTP ব্যবহার হয়। শুধুমাত্র Mail পাঠানোর জন্য এটি ব্যবহার হয়।
 HTTP (Hyper Text Transfer Protocol) : আমরা internet browse করি কিভাবে সেটি বোঝার জন্য এই Protocol টি বুঝতে হবে। Internet HTML file ব্যবহার এর জন্য HTTP ব্যবহার হয়। এর মাধ্যমে client server এর মধ্যে দ্রুতগতিতে Data Transfer হয়। এটিতে কেবল দু ধরনের মেসেজ transfer হতে পারে, Client Request এবং Server Response HTTP Server এ থাকে HTML fileএইসব File পাওয়ার জন্য Client Web Browser এ ওই page এর URL(Uniform Resource Location) Type করা হয়। Web browser তখন সেই page এর জন্য অনুরোধ পাঠায় server এ। server তখন সেই অনুরোধ এর প্রেক্ষিতে নির্দিষ্ট page client এর নিকট পাঠায়।

DHCP (Dynamic Host Configuration Protocol) : TCP/IP Network এ host configure করা বড় কাজ। যেমন প্রতিটি host এর ip address, subnet mask, default gateway, DNS server ip ইত্যাদি configure করতে হয়। এইগুলি manually করতে হলে সময় লাগে অনেক বা ভুল হতে পারে। এই জন্য এই প্রক্রিয়াকে automatic করার জন্য এই protocol ব্যবহার হয়। network size বড় হলে DHCP ব্যবহার করা যেতে পারে।

SNMP (Simple Network Management Protocol) : বিভিন্ন Network device monitor manage করার জন্য এই protocol ব্যবহার হয়। বিভিন্ন ধরনের সমস্যা reporting করে থাকে। এটি ব্যবহার এর জন্য প্রতিটি work station SNMP install করতে হবে। এর জন্য SNMP Manager Software দরকার।
DNS (Domain Name System) : ইন্টারনেট একটি TCP/IP networkএখানে প্রতিটি Host কে চিহ্নিত করা হয় IP address দিয়ে। যদি আমাদের প্রতিটি website IP address type করে খুলতে বলা হয় তাহলে সেটা মনে রাখা সম্ভব হবে না। যেমন : 74.125.236.128 এই IP address টা যদি আপনি browser type করেন তাহলে google.com খুলবে। আবার যদি আপনি browser google.com লেখেন, তাহলেও google.com খুলবে। এখন কোনটা আপনার কাছে মনে রাখা সহজ? এইজন্য রয়েছে DNS
Domain name Host name সহযোগে কোনো কম্পিউটার এর যে পুরো নাম তাকে বলা হয়
FQDN (Fully Qualified Domain Name)কোনো browser এ যখন এধরনের FQDN Type করা হয় তখন সেই কম্পিউটার প্রথমে সেই নামের বিপরীতে IP address কী তা জানার চেষ্টা করে। FQDN নামের বিপরীতে IP address এর একটি Database সংরক্ষণ করে DNS server
Loopback Address : Network 127 কে বলা হয় Loopback addressকোন Host কে এই address দেওয়া যাবে না। কারন প্রতিটি Host এই Network এর অংশ। 127.0.0.0 Network কে বলা হয় local network computer নিজের configuration check করার জন্য নিজেকে একটি IP address দেবে 127.0.0.1command prompt খুলে ping localhost type করলে reply পাওয়া যাবে 127.0.0.1 থেকে। এর দ্বারা বোঝা যায় TCP/IP সঠিক ভাবে install হয়েছে কিনা।
Subnet Mask : বড় নেটওয়ার্ক কে ছোটো অংশে বিভক্ত করার পদ্ধতিকে বলে সাবনেটিং। প্রতিটি TCP/IP host এর অন্তত দুটি তথ্য দরকার পরে। প্রথমত একটি IP address এবং দ্বিতীয়ত একটি subnet maskSubnet mask এর কাজ হল IP address এর কোন বিটগুলি নেটওয়ার্ক ID ও কোনগুলি Host ID তা শনাক্ত করা। Subnet mask না থাকলে কম্পিউটার বুঝতে পারে না IP address এর কোন অংশ network ID ও কোন অংশ Host ID
এর সুবিধা –
(i)          কম নেটওয়ার্ক Traffic
(ii)          উন্নত নেটওয়ার্ক Performance
(iii)         সহজ Management
(iv)         Network বিস্তৃত করার সুবিধা।
  IPv6 : বর্তমানে আমরা IPv4 ব্যবহার করছি। কিন্তু বর্তমানে Internet host এর সংখ্যা বাড়তে বাড়তে এমন সমস্যা দেখা দিছে যে কয়েক বছর পর কোনো host কে IP দেওয়া সম্ভব হবে না। বর্তমানে IP addressing 32 Bit ব্যবহার করা হয়। IPv6 এ ব্যবহার করা হবে 128 Bit128 Bit ব্যবহার হলে সম্ভাব্য host এর সংখ্যা হবে 2128IPv6 address কে প্রকাশ করা হবে হেক্সাডেসিমেল এ। যেমন- EFDC: BA62:7654:3201: EFDC: BA72:7654:3210
IPv6 এ তিন ধরনের address দেওয়া হয়ে থাকে।
(i)Global Address (ii)Link-Local Address (iii)Unique Local Address

ISATAP (Inter Site Automatic Tunnel Addressing Protocol) : ISATAP একটি টানেলিং protocol যা IPv6 network কে IPv4 নেটওয়ার্ক এর সাথে যোগাযোগ করতে সাহায্য করে ISATAP Router এর মাধ্যমে। IPv4 IPv6 নেটওয়ার্ক এর মধ্যে যোগাযোগের জন্য ISATAP

Address translession করে থাকে। কেবল Private Network ব্যবহারের জন্য ISATAP


পরবর্তী অধ্যায়  NETWORK CONNECTOR(Click করুন)

আগের অধ্যায় OSI MODEL(Click করুন)
Post a Comment

Popular Posts